ভারতের খাদি ও গ্রামীন শিল্প কমিশন (কেভিআইসি) এই উদ্দেশ্য ১০০ কাস্টম ডিজাইন করা মুজিব কোট ঢাকার ভারতীয় হাই কমিশনে সরবরাহ করেছে। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ২৬ ও ২৭ মার্চ ঢাকা সফর করবেন। খবর ইয়ন টিভি

কেভিআইসি’র চেয়ারম্যান ভিনয় কুমার সাক্সে’না জানান, এই ধরনের ১০০ কোট আমরা তৈরি করেছি। এর অর্ডার দিয়েছিলো ঢাকা হাইকমিশনের কালচারাল সেন্টার। অল ইন্ডিয়া রেডিও

সবসময়ই খাদি কাপড়ের প্রচারণা করে আসছেন মোদি । গত ২০১৬ সালের ব্রিক্স সম্মেলনেও তিনি এই কাপড়ের জ্যাকেট পরেছিলেন।

জানা গেছে, এই কোট গুলো উচ্চমানের খাদি দিয়ে তৈরি। চিরায়ত মুজিব কোটের মতোই এগুলোর রঙ কালো, বোতাম ৬টি, নিচের অংশে আছে দুটি পকেট এবং বাম দিকের উপরের অংশেও আছে ফ্রন্ট পকেট।
সূত্রঃ এএনআই

টাঙ্গাইলের ধ’নবাড়ী উপজে’লার শাহনাজ পারভীনের ব’য়স ২৩ বছর। ত’থ্য গো’পন করে স’রকারি চাকরি করার অভিযোগ উঠলেও র’হস্যজনক কারণে বহাল তবিয়তে রয়েছেন তিনি।

জানা গেছে, বি’ষয়টি নিয়ে স্থানীয় স’রকারের উপ-পরিচালক বরাবর লিখিত অভিযোগ দেয়া হলেও এখনো কোনো পদক্ষেপ নেয়নি কর্তৃপক্ষ। ত’থ্যগুলো প্রকাশের পর রূপা তার সকল প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংশোধ’নের জন্য দৌঁড়ঝাপ শুরু করেছেন। নিজেকে কুমারি বানাতে ঘনিষ্টতা তৈরি করেছেন সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের স’ঙ্গেও।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই ইউনিয়নের একাধিক ইউপি সদস্য জানান, টাঙ্গাইলের স্থানীয় স’রকারের উপ-পরিচালক শরীফ নজরুল ইসলামকে পালক পিতা সাজিয়ে মে’য়ে পরিচয় দেয়ায় ব্যবস্থা নিচ্ছে না কর্তৃপক্ষ। তাছাড়া, চেয়ারম্যানের স’ঙ্গে ইদানীং ঘনিষ্ঠতা বেড়েছে রূপার।

যদুনাথপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মীর ফিরোজ আহমেদ এ বি’ষয়ে বলেন, স’রকারি চাকরি বি’ষয়ে কর্তৃপক্ষ বলতে পারবে সে ত’থ্য গো’পন করে চাকরি নিয়েছে কিনা। জ’ন্ম ও মৃ’ত্যু সনদের ক্ষেত্রে আমি স্বাক্ষর দিয়েছি। রূপার স’ঙ্গে আমার ঘনিষ্ঠ কোনো সম্প’র্ক নেই।

শাহনাজ পারভীন রূপার শিক্ষাগত সনদপত্র ও স’রকারি চাকরিতে আবেদন এবং কাবিননামায় যে ত’থ্য দিয়েছে তার একটির স’ঙ্গে আরেকটির মিল নেই। এমন অনেক জায়গায় তিনি নিজেকে অবিবা’হিতও দাবি করেছেন।

এদিকে ত’থ্য প্রমাণে জানা যায়, ২০১২ সালের নভেম্বর মাসে পার্শ্ববর্তী মধুপুর উপজে’লার আম্বাড়ীয়া গ্রামের হায়দার আলীর ছেলে রোকনুজ্জামানের স’ঙ্গে পারিবারিকভাবে রূপার বিয়ে হয়। বিয়ের দেড় বছরের মাথায় প’রকীয়া প্রেমে পা’লিয়ে গিয়ে রোকনুজ্জামানের বন্ধু একই উপজে’লার মোল্লাবাড়ী এলাকার মৃ’ত হাজী শহীদ আলীর ছেলে মনির হোসেনের স’ঙ্গে দ্বিতীয় বিয়ে হয়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক ব্যক্তি জানান, শাহা’নাজ পারভিন রূপা বিভিন্ন ছেলের স’ঙ্গে একাধিক বিয়ে করছে। তাদের কাছ থেকে অনেক টাকা নিয়ে তাদের তালাকও দিয়েছে।

শাহনাজ পারভীন রূপার সাবেক স্বা’মী মনির হোসেন জানান, অনেক ছেলেকে প্রেমের জালে ফাঁ’সিয়ে টাকা পয়সা নিয়ে পরবর্তীতে অন্য ছেলের স’ঙ্গে সম্প’র্ক গড়ে তোলে রূপা। এটা তার একরকম নে’শা।

অপরদিকে প্রেমের ফাঁ’দে ফে’লে প্র’তারণার অভিযোগে শাহনাজ পারভীন রূপা ওরফে রিপার বি’রুদ্ধে টাঙ্গাইল আ’দালতে মা’মলা দা’য়ের করেছেন এক যুবক। আ’সামিরা হলেন, ধ’নবাড়ী উপজে’লার মমিনপুর গ্রামের ইদ্রিস আলী মণ্ডলের মে’য়ে শাহনাজ পারভীন রূপা ওরফে রিপা (২৩), রূপার বোন সিমা আক্তার (১৯), রূপার মাতা শিউলি বেগম।

এ বি’ষয়ে অ’ভিযুক্ত শাহনাজ পারভীন রূপা মুঠোফোনে জানান, মা’মলা চলমান রয়েছে এ বি’ষয়ে তিনি মন্তব্য করবেন না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here